উপান্ত কাকে বলে?

উপান্ত কাকে বলে? : উপান্ত হল গণিতের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। উপান্ত সম্পর্কিত প্রশ্নগুলি প্রায়শই পরীক্ষায় জিজ্ঞাসা করা হয়, যেমন – উপান্ত কাকে বলে? – উপান্তরের সংজ্ঞা উদাহরণ সহ ব্যাখ্যা করুন, উপান্ত কি? উপান্ত কয় প্রকার ও কি কি? এই সব বিস্তারিত জানতে শেষ পর্যন্ত নিবন্ধ পড়ুন।

উপান্ত কি?

কোন তথ্যের ক্ষুদ্রতম একক কে উপাত্ত বলে। নির্দিষ্ট ফলাফল পাওয়ার জন্য এই উপাত্ত ব্যবহার করা হয়। উপাত্তের নিজস্ব কোনো অর্থ নেই। উপাত্ত বিভিন্ন ঘটনা, প্রেক্ষাপট বা পরিস্থিতির সাথে যুক্ত হয়েই অর্থপূর্ণ হয়। যেমন ১ একটি সংখ্যা যার নিজস্ব কোনো অর্থ নেই। এটি একটি উপাত্ত। এটি তখনই অর্থপূর্ণ হবে যখন এটি দ্বারা কারও রোল নাম্বার অথবা অর্থযুক্ত কিছু বোঝানো হবে।

উপান্ত কাকে বলে?

উপান্ত কাকে বলে

উপাত্ত বলতে এমন কিছু তথ্যকে বোঝায় যা নির্দিষ্ট কোনো চলকের বা এক সেট চলকের গুনগত ও পরিমাণ গত ধর্মাবলিকে প্রকাশ করে। বেশিরভাগ সময় কোনো পরিমাপ প্রক্রিয়ার ফল স্বরূপ এসব উপাত্ত সংগৃহীত হয়। উপাত্তকে কানেকটিভিটি গ্রাফ, লেখচিত্র বা চলকসমূহের মান তালিকা রূপে উপস্থাপন করা হতে পারে। উপাত্তকে অনেক সময় সবচেয়ে নিচের স্তরের বিমূর্ত ধারণা হিসাবে দেখা হয়, যেখান থেকে তথ্য বা জ্ঞান আহরণ করা হয়ে থাকে।

উপান্ত এর সংজ্ঞা :

কোন একটি নির্দিষ্ট বৈষিষ্ট্যের সংখ্যাবাচক পরিমাপকে উপাত্ত বলে। এটাকে আরো সহজভাবে বলা যায়- সংখ্যাভিত্তিক যে তথ্য থাকে সেই তথ্যকে পরিসংখ্যান বলে আর, পরিসংখ্যানে যে সংখ্যাগুলো থাকে সেগুলো হচ্ছে উপাত্ত

উপান্তের বৈশিষ্ট্য কি?

  • অগোছালো অবস্থায় থাকা যে কোনো বর্ণ,চিহ্ন বা সংখ্যা এসব কিছুই হলো তথ্য।
  • তথ্য হলো প্রক্রিয়াকরণের পূর্ব অবস্থা কম্পিউটারে যা ইনপুট হিসেবে ব্যবহৃত হয়।
  • সকল তথ্যই ডেটা।
  • ডেটা কোনো কিছুর পূর্ণাঙ্গ বা অর্থবহ ধারণা দিতে পারে না।
  • ডেটা তথ্যের উপর নির্ভর করে না।
  • কোনো ছাত্রের ভিন্ন বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরগুলো পৃথক পৃথকভাবে ডেটার উদাহরণ হতে পারে।

উপান্ত কয় প্রকার ও কি কি?

উপাত্ত 2 প্রকার, যথা —

1. প্রাথমিক বা প্রত্যক্ষ উপাত্ত

2. মাধ্যমিক বা পরোক্ষ উপাত্ত

সরাসরি যে উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় সেটাকে বলা হয় প্রাথমিক উপাত্ত।পরোক্ষভাবে বা, দ্বিতীয় কোন উৎস থেকে যে উপাত্ত সংগ্রহ করা হয় সেটাকে বলে মাধ্যমিক উপাত্ত। মনে করুন আপনি সরাসরি কয়েকটি জায়গার তাপমাত্রা গ্রহন করলেন, এটি প্রাথমিক উপাত্ত। আর, বাংলা পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে জনসংখ্যা বিষয়ক উপাত্ত গ্রহণ করলেন, এটি মাধ্যমিক।

প্রাথমিক বা প্রত্যক্ষ উপাত্ত কাকে বলে?

উৎস থেকে সরাসরি যে উপাত্ত সংগৃহীত হয় তাকেই প্রাথমিক উপাত্ত বলা হয়। যেমন, বার্ষিক পরীক্ষায় 10 ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত 15 জন শিক্ষার্থীর বাংলায় প্রাপ্ত নম্বর হলো– 75, 81, 55, 79, 60, 85, 71, 65, 68, 58, 45, 56, 63, 50। সরাসরি সংগৃহীত বিধায় এ উপাত্তের নির্ভরযোগ্যতা অনেক বেশি।

মাধ্যমিক বা পরোক্ষ উপাত্ত কাকে বলে?

পরোক্ষ উৎস থেকে সংগৃহীত উপাত্ত হচ্ছে মাধ্যমিক উপাত্ত। যেমন– কলকাতা, পুরুলিয়া, বাঁকুড়া, নদিয়া জেলার জুলাই মাসের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা যথাক্রমে 28°C, 36°C, 35°C, ও 31°C। এ তথ্য সরাসরি সংগ্রহ করা আমাদের পক্ষে সম্ভব নয়। এক্ষেত্রে, কোনো প্রতিষ্ঠান হতে তা সংগ্রহ করতে হবে। এ উপাত্ত সরাসরি সংগ্রহ করা যায় না বলে এর নির্ভরযোগ্যতা অনেক কম।

অন্যভাবেও উপান্তকে ভাগ করা যায়-

1. অবিন্যস্ত উপাত্ত

2. বিন্যস্ত উপাত্ত

ধরুন — 44, 88, 53, 71, 65, 80 গণিতের এই সংখ্যাগুলি কোন কিছুর ফলাফল হয়েছে।

উপরে যে গণিতের নম্বর আছে সেগুলোকে 44, 53, 65, 71, 80, 88 এভাবে সংখ্যার উচ্চক্রমে সাজালে সেটি হবে বিন্যস্ত উপাত্ত, আর না সাজালে সেটি অবিন্যস্ত।

অবিন্যস্ত উপাত্ত কাকে বলে?

উপরে বর্ণিত কোন বিষয়ের প্রাপ্ত নম্বর গুলো অবিন্যস্ত ভাবে দেওয়া আছে। তাই এগুলো হলো অবিন্যস্ত উপাত্ত। নম্বরগুলো মানের কোন ক্রমে অনুসারে সাজানো নেই অর্থাৎ উপাত্তগুলো যদি কোন প্রকার বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী সাজানো না হয় তখন তাকে অবিন্যস্ত উপাত্ত বলে।

বিন্যস্ত উপাত্ত কাকে বলে?

সংগৃহীত উপাত্ত কোনো বৈশিষ্ট্য অনুযায়ী বা মানের উর্ধ্বক্রম বা অধক্রম অনুসারে সাজানো হলে তাকে বিন্যস্ত উপাত্ত বলে।

গুণবাচক উপান্ত কাকে বলে?

কোনো গবেষণায় গবেষক কোনো বস্তু বা ব্যক্তির বিশেষ কোনো গুনকে আছে বা নেই দ্বারা চিহ্নিত করে এবং ঐ গুন কত ব্যক্তি বা বস্তুর মধ্যে আছে বা নেই নির্ণয় করলে যে উপাত্ত পাওয়া যায় তাকেই গুণবাচক উপাত্ত বলা হয়।

ধরুন কোন কৃষিবিজ্ঞানী চাষের ক্ষেতে পোকা-মাকড় মারার জন্য কীটনাশক ছিটিয়েছেন এবং লক্ষ্য করেছেন ঐ কীটনাশক কার্যকরী হয়েছে কিনা। এক্ষেত্রে ফলাফল হবে কার্যকরী বা কার্যকর নয়, এমন উপাত্তকে গুণবাচক উপাত্ত বলে। আবার কোন গবেষণায় যদি জানতে চাওয়া হয় যে কত লোকের গায়ের রং সাদা বা কতজনের রঙ কালো এ সমস্ত ক্ষেত্রে যে উপাত্ত পাওয়া যায় সেগুলোকে বলা হয় গুণবাচক উপাত্ত।

পরিমান বাচক উপান্ত কাকে বলে?

যখন কোনো গবেষক কোনো ব্যক্তি বা বস্তুর কোন বৈশিষ্ট্যকে পরিমাণগতভাবে পরিমাপ করে তখন সে উপাত্তকে পরিমাণবাচক উপাত্ত বলে।

ধরুন, বিভিন্ন ব্যক্তির বয়স, আয়, পারিবারিক বস্তু জমি, পরিবারের লোক সংখ্যা, আবাদী জমির পরিমাণ, গোবাদী পশুর সংখ্যা, চাষে উৎপন্ন ফসলের পরিমাণ ইত্যাদি পরিমাপযোগ্য উপাত্তকে পরিমাণবাচক উপাত্ত বলে।

উপসংহার

এই পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ জানাই। আমাদের আজকের নিবন্ধে, আমি – উপান্ত কাকে বলে? সম্পর্কিত তথ্য বিশদভাবে প্রদান করেছি এবং আমরা আশা করি যে আমাদের দ্বারা উপস্থাপিত এই গুরুত্বপূর্ণ নিবন্ধটি আপনার জন্য খুবই উপযোগী প্রমাণিত হয়েছে এবং আপনি সহজেই এই নিবন্ধটি বুঝতে সক্ষম হবেন। পোস্টটি যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে দয়াকরে Comment করে আপনার মতামত জানান এবং আপনার প্রিয়জনদের সাথে ভাগ করে নিন।

Leave a Comment

error: