খেজুরের উপকারিতা – Benefits of Dates in Bengali

0
25

খেজুরের উপকারিতা – Benefits of Dates in Bengali : আমরা নিত্যদিন যে সমস্ত ফল খেয়ে থাকি, তার মধ্যে খেজুর অন্যতম এবং জনপ্রিয়। তবে এই খেজুর সবাই খেয়ে থাকলেও, অনেকেই খেজুরের গুনাগুন সম্পর্কে জানেন না। আজকের এই পোস্টে আমরা – খেজুরের উপকারিতা – Benefits of Dates in Bengali সম্পর্কে আপনাদের সম্পূর্ণ তথ্য দেবো। আসুন, জেনে নিন খেজুর উপকারিতা সম্পর্কে।

খেজুর গাছ এক প্রকার কাণ্ড শাখাবিহীন, শক্ত, গোলাকার ও রুক্ষ প্রাকৃতিক গাছ। খেজুর গাছ 30-40 ফুট পর্যন্ত বৃদ্ধি পায়। এটি মরুভূমিতে, কম জল এবং গরম আবহাওয়ার জায়গায় জন্মে। নারকেলের মতোই এর গাছের ওপরের অংশে, পাতার নিচে, থোকায় থোকায় খেজুরের ফল পাওয়া যায়। সবুজ কাঁচা খেজুর পাকার পর বাদামী এবং আঠালো হয়ে যায়। খেজুর শুকানোর পর একে খেজুর বলে।

Table of Contents

খেজুরে কি কি পুষ্টি উপাদান থাকে?

  • প্রাকৃতিক চিনি – 85%
  • খনিজ পদার্থ
  • ভিটামিন এ, বি এবং সি
  • ক্যালসিয়াম
  • পটাসিয়াম (প্রচুর)
  • প্রোটিন
  • ফাইবার
  • আয়রন
  • তামা
  • সোডিয়াম (অল্প পরিমাণে)

তারিখের থার্মোডাইনামিক মান হল 144 এবং খড়কের মান হল 317।

আয়ুর্বেদ অনুসারে, খেজুর মিষ্টি, পুষ্টিকর, শক্তিবর্ধক, শ্রমসাধ্য, তৃপ্তিদায়ক, কলেরেটিক, বীর্য-বর্ধক এবং শীতল গুণসম্পন্ন। খেজুর ও খড়কে ভিটামিন, প্রোটিন, ফাইবার, কার্বোহাইড্রেট ও শর্করা থাকার কারণে একে পরিপূর্ণ খাদ্য বলা হয়। তাই সব রোজাতেই এর ব্যবহার হয়ে থাকে। রাইতা তাজা, সবুজ খেজুর থেকে তৈরি করা হয়। খেজুরের চাটনি তৈরি হয়। কেক এবং পুডিং এ খেজুর ব্যবহার করা হয়। খড়ক শুকনো ফলের অংশ। বাড়ির ছাদ, ঝাড়ু, তুলি ইত্যাদি খেজুর পাতা দিয়ে তৈরি হয়। এটা অনেক ভবন জন্য একটি ভিত্তি হিসাবে দরকারী। এর ফাইবার দড়ি তৈরিতে ব্যবহৃত হয়।

খেজুরের উপকারী খাদ্য গুন কি?

  • ভিটামিন এ দিয়ে শরীরের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ভালোভাবে গড়ে ওঠে।
  • ভিটামিন বি হার্টের জন্য উপকারী। এটি হার্টের পেশীকে শক্তিশালী করে। ক্ষুধা বাড়ে।
  • ভিটামিন সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
  • যক্ষ্মা রোগীদের দুর্বলতা দূর করে শক্তি যোগায়।
  • খেজুর ধাতু বৃদ্ধিকারী ও কফনাশক।

খেজুরের উপকারিতা – Benefits of Dates in Bengali

খেজুরের উপকারিতা

মিষ্টি, পুষ্টিকর, শক্তিদায়ক, শ্রম-হ্রাসকারী এবং সন্তোষজনক খেজুরের শীতল বৈশিষ্ট্য রয়েছে। শুকনো খেজুরকে বলা হয় খড়ক। খড়কে খেজুরের সব বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায়।

1. অ্যানিমিয়ায় প্যানেসিয়া (রক্তের অভাব)

রক্তে আয়রনের পরিমাণ কমে যাওয়ায় ক্লান্তি, নার্ভাসনেস, হৃদস্পন্দন বৃদ্ধির মতো সমস্যা দেখা দেয়। এমন অবস্থায় একুশ দিন একটানা ৪-৫টি খেজুর খেতে হবে।

দীর্ঘস্থায়ী অ্যানিমিয়ায়, মস্তিষ্কে কম রক্ত ​​সরবরাহ হয়। যে কারণে ভুলে যাওয়া, মাথা ঘোরা, বিষণ্ণতা প্রভৃতি লক্ষণ দেখা যায়, তাহলে ছয় মাস খাদ্যতালিকায় ৭-৮টি খেজুর নিন। এটি স্বস্তি দেয়।

2. খেজুর আর্থ্রাইটিসের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

দুর্বলতা, পায়ের ব্যথা ও বাতের ব্যথায় এক কাপ গরম দুধে এক চামচ গরুর ঘি ও এক চামচ খেজুরের গুঁড়া মিশিয়ে গরম করে খান।

3. মহিলাদের পায়ের ব্যথা, কোমর ব্যথা উপশম করে

বেশিরভাগ মহিলাই পায়ে ব্যথা, কোমর ব্যথার অভিযোগ করেন। এ অবস্থায় ৫টি খেজুর দুই গ্লাস পানিতে আধা চা চামচ মেথি দিয়ে অর্ধেক না হওয়া পর্যন্ত ফুটিয়ে নিন। এটি হালকা গরম হওয়ার পরে পান করুন। এটি স্বস্তি দেয়।

4. কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি পায়

সকালে পেট পরিষ্কার না হলে রাতে পানিতে ৫-৬টি খেজুর ভিজিয়ে রাখুন। সকালে খেজুর ভালো করে চেপে সেই পানি পান করুন। খেজুর রেচক। পেট পরিষ্কার করে।

5. হজমের ব্যাধি নিরাময় করে

অন্ত্রে হজমের জন্য প্রয়োজনীয় নির্দিষ্ট অণুজীবের সংখ্যা খেজুরের সাথে বৃদ্ধি পায়। এটি হজম প্রক্রিয়ার উন্নতি ঘটায়।

6. খেজুর আলসার, অ্যাসিডিটিতে আরাম দেয়

খেজুর হজমশক্তির উন্নতি ঘটায়, যা আলঝেইমার এবং অ্যাসিডিটির মতো রোগ নিরাময়ে সাহায্য করে।

7. শরীরের শক্তি বৃদ্ধির জন্য খুবই ভালো

ছোট বাচ্চাদের সুস্বাস্থ্যের জন্য প্রতিদিন একটি খেজুর, দশ গ্রাম চাল জলে পিষে নিন। এতে সামান্য পানি মিশিয়ে দিনে তিনবার পান করুন।

বাড়ন্ত বয়সের বাচ্চাদের খড়ক ঘিতে ভিজিয়ে খাওয়ান। নিয়মিত খেজুর খাওয়া ওজন বাড়াতে এবং শরীরকে শক্তিশালী করতে সাহায্য করে। ঘি জয়েন্টগুলিকে তৈলাক্ত করে এবং খড়ক হাড়কে শক্তিশালী করে। দ্রুত বৃদ্ধি পায়।

বয়স্ক ব্যক্তিদের নিয়মিত খড়ক ও গরম দুধ খেলে শক্তি বৃদ্ধি পায়। শরীরে নতুন রক্ত ​​তৈরি হতে থাকে।

Note : ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এর অত্যধিক ব্যবহার নিষিদ্ধ, তাই আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করার পরেই খেজুর ব্যবহার করুন।

খেজুর হজমে ভারী এবং অতিরিক্ত সেবনে ডায়রিয়া হতে পারে।

FAQs:

খেজুরের সংকৃত নাম কি?

সংস্কৃত নাম: খার্জুরাম

খেজুরের বৈজ্ঞানিক নাম কি?

বৈজ্ঞানিক নাম: Phoenix Dactylifera

খেজুরের ইংরেজি নাম কি?

খেজুরের ইংরেজি হল – Dates

দিনে কয়টি খেজুর খেতে পারি?

দিনে ২ থেকে ৩ টি খেজুর খেতে পারেন। অতিরিক্ত খাওয়া হজমে প্রভাব ফেলতে পারে।

দুধে খেজুর মিশিয়ে খেলে কি হয়?

দুধের সাথে খেজুর খেলে প্রচুর শক্তি পাওয়া যায় এবং রক্তস্বল্পতার চিকিৎসায় খুবই উপকারী।

সকালে খালি পেটে খেজুর খেলে কি হয়?

সকালে খালি পেটে খেজুর খেলে দৃষ্টিশক্তি ভালো হয়। রাতকানা রোগের চিকিৎসায় এটি খুবই উপকারী।

খেজুর কীভাবে ব্যবহার করবেন?

সকালে খালি পেটে খেজুর খেতে পারেন, দুধের সাথে খেজুর খেতে পারেন। খেজুরের চাটনি বানিয়েও খেতে পারেন।

কখন খেজুর খাওয়া উচিত নয়?

চিনি ও স্থূলতায় ভুগছেন এমন ব্যক্তিদের খেজুর খাওয়া উচিত নয়। ডিহাইড্রেশনের অভিযোগ থাকলেও সঙ্গে সঙ্গে খেজুর খাওয়া এড়িয়ে চলুন।

খেজুর খাওয়ার অপকারিতা কি কি?

আপনার যদি অ্যাজমা বা অ্যালার্জির অভিযোগ থাকে তবে সাবধানে খেজুর খান কারণ এতে ব্যবহার করলে প্রিজারভেটিভ আপনার সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে। বেশি খেজুর খেলেও আমাশয় হতে পারে।

কোন ধরনের খেজুর সেরা?

তাজা দেশি খেজুর স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ভালো।

ছুরা এবং খেজুরের মধ্যে পার্থক্য কি?

শুকনো খেজুরকে ছুরা বলা হয়।

খেজুরের দুধ কখন পান করা উচিত?

রাতে ঘুমানোর আগে খেজুর ও দুধ খাওয়া ভালো।

খেজুর খাওয়ার সঠিক উপায় কি?

সকালে খালি পেটে খেজুর খেতে পারেন, দুধের সাথে খেজুর খেতে পারেন। খেজুরের চাটনি বানিয়েও খেতে পারেন।

খেজুরের স্বাদ কেমন?

খেজুর শরীরে তাপ বাড়ায়, তাই শীতকালে খেজুর খাওয়া খুবই ভালো।

উপসংহার

বন্ধুরা, আমরা এখানে খেজুরের উপকারিতা – Benefits of Dates in Bengali সম্পর্কে তথ্য দিয়েছি। আশা করি খেজুর সম্পর্কে এই লেখাটি পড়ে আপনি অনেক কিছু জানতে পেরেছেন। আপনি যদি পোস্টটি পছন্দ করেন, তাহলে এই সোশ্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here